মুখ্যমন্ত্রীর বাড়ির সামনে বিক্ষোভ, পুলিশি হেনস্থার শিকার বিজেপির রাজ্য সভাপতি

148

কলকাতা: ভোটের আগে ফের তপ্ত ভবানীপুর৷ তপ্ত বাংলা৷ মুখ্যমন্ত্রীর বাড়ির সামনের রাস্তায় দেহ রেখে বিক্ষোভের জেরে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় রীতিমতো রণক্ষেত্রর চেহারা নিল ভবানীপুর৷

অভিযোগ, বিক্ষোভ হঠাতে রীতিমতো বিজেপির রাজ্য সভাপতি সুকান্ত মজুমদারকে ঘটনাস্থল থেকে টেনে হিঁচড়ে নিয়ে যাওয়া হয়৷ সুকান্তবাবু বলেন, ‘‘আপনারা দেখুন, বিরোধী দলনেতাকে কিভাবে টেনে হিঁচড়ে রাজপথ দিয়ে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে৷ বাংলায় গণতন্ত্র হত্যা করা হচ্ছে৷ এঘটনা আরও একবার সেটাই প্রমাণিত করল৷’’

ঘটনার সূত্রপাত, মগরাহাট পশ্চিমের বিজেপির প্রার্থীর মৃত্যুর ঘটনায় পুলিশের বিরুদ্ধে এফআইআরে কারচুপির অভিযোগ এনে এদিন মুখ্যমন্ত্রী তথা পুলিশমন্ত্রীর বাড়ির সামনে দেহ রেখে বিক্ষোভ শুরু করে বিজেপি৷ সেখানে রাস্তার ওপর বসে বিক্ষোভে নেতৃত্ব দিচ্ছিলেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি, ছিলেন প্রার্থী প্রিয়ঙ্কা টিবরেওয়াল, সাংসদ অর্জুন সিং সহ অন্যান্যরা৷ অভিযোগ, শান্তিপূর্ণ বিক্ষোভ হঠাতে আচমকায় সক্রিয় হয়ে ওঠে পুলিশ৷ পুলিশের বিরুদ্ধে মরদেহ হাইজ্যাক করারও অভিযোগ এনেছে গেরুয়া শিবির৷

যদিও তৃণমূল বিধায়ক তাপস রায় বলেন, ‘‘ভবানীপুর হাই সিকিউরিটি জোন৷ সেখানে কেউ দেহে রেখে বিক্ষোভ করে পরিস্থিতি অগ্নিগর্ভ করার চেষ্টা করবেন, সেটা তো পুলিশ মেনে নেবে না৷ সেটাই হয়েছে৷’’ তাপস রায়ের দাবি, ‘‘মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে জিততে পারবে না৷ এটা ওরাও জানে৷ নতুন সভাপতি হয়েছেন৷ তাই নিজের নাম প্রচারের জন্য এই ধরণের উস্কানিমূলক কর্মকাণ্ড করছেন সুকান্ত মজুমদার৷’’